Categories
Uncategorized

‘ওদের আর ছেড়ে দেওয়া যাবে না’, বাবরকে শোয়েব

নিউজিল্যান্ড দল নিরাপত্তা–হুমকিকে কারণ দেখিয়ে পাকিস্তান সফর থেকে চলে গেছে। কিন্তু পাকিস্তানের দাবি, তাদের দেশে ক্রিকেট খেলায় নিরাপত্তার কোনো শঙ্কাই নেই। কী ধরনের নিরাপত্তা–হুমকি, কোন পর্যায়ের হুমকি—সেসব না জানিয়ে চলে যাওয়াতেই নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের (এনজেডসি) ওপর খেপে আছে পাকিস্তান। কিন্তু নিউজিল্যান্ড চলে যাওয়া যদি হয় ক্ষত, সেটিতে নুনের ছিটা হয়ে এসেছে গতকাল ইংল্যান্ডের পাকিস্তান সফরে না আসার ঘোষণা। ক্ষতে নুন পড়ায় জ্বালাপোড়া বেড়েছে, নিউজিল্যান্ডের ওপর তাই ক্ষোভ আরও বেড়েছে পাকিস্তানের। নিউজিল্যান্ড ফিরে যাওয়াতে অন্য দলগুলো পাকিস্তানে যেতে না চাওয়ার একটা কারণ খুঁজে পাবে, পাকিস্তানের যুক্তি এমনই। বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন নিউজিল্যান্ডের ওপর পাকিস্তানের মানুষ যে খ্যাপা, সেটির প্রমাণ আরেকবার পাওয়া গেল পাকিস্তানের সাবেক ফাস্ট বোলার শোয়েব আখতারের কথায়। আগামী মাসে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ আছে পাকিস্তানের। সে ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ছেড়ে না দিতে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমকে আহ্বান জানিয়েছেন শোয়েব। পাকিস্তানের হতাশ হওয়ারই কথা! ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের বাসে সন্ত্রাসী হামলার কারণে মাঝে কতগুলো বছর দেশটাতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হতে পারেনি। এরপর বছর তিনেক ধরে আস্তে আস্তে ক্রিকেট যা-ও ফিরতে শুরু করেছিল, এর মধ্যেই এল এ ধাক্কা।

১৮ বছর পর পাকিস্তান সফরে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু সফরের প্রথম ম্যাচ শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে এনজেডসির কাছে খবর এল, তাদের দল স্টেডিয়ামে যাওয়ার পথে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হতে পারে। শুক্রবার তাই প্রথম ওয়ানডে শুরুর আগে হোটেলই ছাড়েনি নিউজিল্যান্ড দল। কিছুক্ষণ পর ঘোষণা আসে, সফর বাতিল করে ফিরে যাবে তারা। বিজ্ঞাপন কী ধরনের হামলার আশঙ্কা ছিল, কোন পর্যায়ের শঙ্কা—নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড এর কিছুই খোলাসা করেনি। তবে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রাশিদ আহমাদ পরে বলেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান ক্রিকেটের কিংবদন্তি অধিনায়ক ইমরান খানের সঙ্গে ফোনালাপে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন জানিয়েছেন, স্টেডিয়ামের বাইরে নিউজিল্যান্ড দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হবে, এমন সুনির্দিষ্ট তথ্য তাঁদের কাছে ছিল। তা নিউজিল্যান্ডের সফর বাতিল করে ফিরে যাওয়া মানে তো শুধু একটা সিরিজই বাতিল হওয়া নয়, পাকিস্তানে অন্য দলগুলোর নিরাপত্তা নিয়েও নতুন করে শঙ্কা তৈরি হওয়া। শঙ্কাটা সত্যি করে গতকাল ইংল্যান্ড দলও জানাল, আগামী মাসে তাদের ছেলে ও মেয়েদের দলের পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা থাকলেও সেটি তারা বাতিল করছে। এরপরই নতুন করে নিউজিল্যান্ডের ওপর ক্ষোভটা ঝেড়েছেন শোয়েব আখতার। তাঁরই শহর রাওয়ালপিন্ডি থেকে নিউজিল্যান্ড দল এভাবে ফিরে যাওয়ায় শোয়েবের ক্ষতটা হয়তো একটু বেশিই! টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করে গতকাল ক্যাপশনে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের টুইটার অ্যাকাউন্টকে ট্যাগ করে শোয়েব লিখেছেন, ‘তাহলে ইংল্যান্ডও (পাকিস্তান সফরে আসতে) আপত্তি জানিয়ে দিল!

ঠিক আছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই তোমাদের দেখে নেব। বিশেষ করে নিউজিল্যান্ড, তোমাদের!’ এর নিচে বর্তমান পাকিস্তান দলের অধিনায়ক বাবর আজমকে ট্যাগ করে সাবেক পাকিস্তানি ফাস্ট বোলার লিখেছেন, ‘পাঞ্জা লড়ার সময় চলে এসেছে। ওদের আর ছেড়ে দেওয়া যাবে না, বাবর!’ টুইটে ইউটিউবের একটি ভিডিওর লিংকও জুড়ে দিয়েছেন শোয়েব। ভিডিওটা তাঁর নিজের ইউটিউব অ্যাকাউন্টের। সে ভিডিওতে শোয়েব বলেছেন, ‘(বিশ্বকাপে) প্রথমে ভারতের সঙ্গে আমাদের ম্যাচ আছে। আমাদের এর পরের বড় ম্যাচটা ২৬ অক্টোবর, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। ওই ম্যাচে আমাদের সব রাগ ঝাড়তে হবে।’ রাগ ঝাড়তে হলে নিউজিল্যান্ডকে বিধ্বস্ত করার মতো দলও তো লাগবে, আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পাকিস্তান দল নিয়ে নিজের হতাশা আগেই জানিয়ে রেখেছেন শোয়েব। এবারও তাই সুযোগ বুঝে পিসিবিকে একটা পরামর্শ দিয়ে রেখেছেন শোয়েব, ‘প্রথমত পিসিবির উচিত, আমাদের দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে ঝামেলাগুলো মিটিয়ে ফেলা। যে তিন-চারজন মূল একাদশে ঢুকলে পাকিস্তান দলকে অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে শক্তিশালী মনে হবে, তাদের দলে নেওয়া।’ পাকিস্তান এর চেয়েও খারাপ সময় কাটিয়েছে জানিয়ে কোনো চিন্তা না করেই খেলার পরামর্শ দিয়েছেন শোয়েব, ‘বিশ্বকাপই আমাদের সব হতাশা উগরে দেওয়ার সময়। পাকিস্তানের এটাই করা উচিত। সে জন্য মনোযোগ পুরোপুরি ধরে রাখতে হবে। পাকিস্তানের কোনো কিছু নিয়ে চিন্তা থাকা উচিত নয়। এর চেয়েও খারাপ সময় আমরা পার করে এসেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *